চেক প্রতারণার অ’ভিযোগে ঢাকাই সিনেমা’র চিত্রনায়িকা অ’পু বিশ্বা’সের বি’রুদ্ধে লিগ্যাল নোটিশ পাঠিয়েছেন বাদশাহ




বুলবুল নামের এক ব্যবসায়ী। সম্প্রতি ঢাকার জজ কোর্টের অ্যাডভোকেট মো. মুনজুর আলমের মাধ্যমে এ নোটিশ

পাঠানো হয়েছে।নোটিশে বলা হয়েছে, ব্যবসায়ী বাদশাহ বুলবুলের সঙ্গে অ’পু বিশ্বা’সের সুস’ম্পর্ক ছিল। সেই সুবাধে




প্লট ক্রয়ের কিস্তি পরিশোধ, ব্যক্তিগত গাড়ি ও ফ্ল্যাট ক্রয়ের জন্য অ’পু ওই ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ১০ লাখ টাকা ঋণ

নেন। গত ৭ জুলাই সে ঋণ পরিশোধের অংশ হিসেবে ৫ লাখ টাকার একটি চেক দিলে অ্যাকাউন্টে প্রয়োজনীয় অর্থ না




থাকায় সংশ্লিষ্ট ব্যাংক কর্তৃপক্ষ সেটি ফেরত দিয়েছে।বিষয়টি অ’পু বিশ্বা’সকে জানানো হলে তিনি কালক্ষেপণ করতে

থাকেন। এক পর্যায়ে ওই ব্যবসায়ীর সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেন। তাই লিগ্যাল নোটিশে অ’পুকে ৩০ দিনের মধ্যে




সব অর্থ পরিশোধের জন্য বলা হয়েছে। তা না করা হলে অ’পু বিশ্বা’সের বি’রুদ্ধে মা’মলা করা হবে বলেও নোটিশে

উল্লেখ করা হয়েছে। অনেকেই বলাবলি করছেন সামান্য টাকার জন্য এই জঘন্য কাজটি করলেন অপু বিশ্বাস!এদিকে




এসব অ’ভিযোগ প্রত্যাখান করে তিনি ষড়যন্ত্রের শিকার বলে দাবি করেন অ’পু বিশ্বা’স। তিনি বলেন, ‘শাকিব খানের

সঙ্গে বিচ্ছেদের পর আমাকে অনেকটা সময় অর্থক’ষ্টে কা’টাতে হয়েছে। তখন সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম কিছু করবো যাতে

নিজের পায়ে দাঁড়ানো যায়। তারই অংশ হিসেবে বগুড়ায় আমাদের পারিবারিক কিছু সম্পদ বিক্রি করে বাদশাহ বুলবুলের




সঙ্গে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে ব্যবসা শুরু করি। কিন্তু কিছুদিনের মধ্যেই দেখলাম তার আচার-আচরণ ভালো নয়।

এমনকি তিনি ইশারা ইঙ্গিতে অশালীন আচরণও শুরু করেন আমা’র সঙ্গে। তাই তার সঙ্গে ব্যবসা না করার সিদ্ধান্ত

নিই। তখন থেকেই আমি ব্যবসা থেকে দূরে সরে থাকি। আমি ঠিকমতো সময় দিতে পারতাম না দেখে বুবুল সাহেব




আমাকে অনুরোধ করেন আমি যেন ২/৩টি চেকবইয়ে স্বাক্ষর করে রাখি ভবিষ্যতে ব্যবসায়িক যে কোনো কাজের

জন্য। সে চেকগুলো দিয়ে বর্তমানের এ ঘটনাটি সাজানো হয়েছে। এছাড়া এ চেক ইস্যু নিয়ে ওই সময় আমি গুলশান




থা’নায় জিডি করেও রেখেছিলাম। প্রমাণও আছে। আশা করছি আমা’র সম্মান নষ্ট না করে বুলবুল সাহেব এসব থেকে বিরত থাকবেন।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here