রাজধানী রামপুরার বাসিন্দা রুমানা মহসীন দিনা নিজের মেয়ের মতো করে জাঁকজমক পরিবেশে গৃহকর্মীর বিয়ে দিয়ে




এক ব্যতিক্রমী দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। করো’না’ভাই’রাস মহা’মা’রীর মধ্যেই ধুমধাম করে ১০ জুলাই গৃহকর্মী শারমিন

আক্তারের বিয়ে দিয়েছেন তিনি। বাসা ও ছাদ রঙিন বাতি দিয়ে সাজানো হয়। মেঝে-সিঁড়িতেও আল্পনা আঁকা হয়। পার্লার




থেকে কনে সাজিয়ে আনা হয়। আগের দিন বাড়ির ছাদে শারমিনের গায়েহলুদের অনুষ্ঠান হয়। গান-বাজনা আর হাসি-

উল্লাসে বাড়ির লোকজন ও আগতরা আনন্দে মাতেন। গ্রামীণফোন কোম্পানির কর্মক’র্তা দিনার বাসায় প্রায় ১২ বছর




আগে শারমিন গৃহকর্মী হিসেবে কাজ শুরু করে। এক সবজি বিক্রেতা তাকে দিনার বাসায় দিয়ে যান। দিনার দুই মেয়ে।

বড় মেয়ে লাজিনা ও ছোট আমিরা। শারমিন যখন বাসায় আসে তখন আমিরা ছিল খুবই ছোট। আপু (শারমিন) চলে




যাচ্ছে তাই লাজিনা ও আমিরার মন খা’রাপ। কিছুতেই তারা আপুকে হারাতে চায় না। তাদের চোখে জল। আবেগ

আপ্লুত দিনা বলেন, তার দুটি নয়, তিনটি মেয়ে। তার দুই মেয়ে শারমিনকে আপু ডাকে। একইসঙ্গে তারা খাবার




খাওয়া, টিভি দেখা ও আনন্দ সবই করত। দিনা জানান, ১৮ বছর বয়স হওয়ার পর থেকেই শারমিনের জন্য ভালো

পাত্রের সন্ধান করে আসছি। স্বর্ণালঙ্কারসহ বিয়ের যাবতীয় জিনিস কিনে শারমিনকে ভোলায় তার মায়ের কাছে




পাঠিয়েছিলাম। কিন্তু সেখানে বিয়ে না করে শারমিন ঢাকায় চলে আসে। ঢাকার মায়ের (দিনা) পছন্দেই সে বিয়ে করবে। দু’বার পাঠানো হলে দু’বারই সে ঢাকায় চলে আসে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here