মৃ’ত স্বামীর অবসর ভাতা জমিয়ে তারই নামে একটি মসজিদ বানিয়েছেন এক সৌদি নারী। ওই নারীর এমন পদ’ক্ষেপের




ছবি সোমবার তার ছেলে টুইটারে প্রকাশ করে। সোশ্যাল মিডিয়ায় ছেলে মোহা’ম্ম’দ আল হারবি ওই ছবি প্রকাশ করার

পর অনেকে প্রশংসা করেছেন। আল হারবি টুইটারে যে ছবি প্রকাশ করেছেন সেখানে দেখা যাচ্ছে, তার মা নতুন বানানো




মসজিদ প্রা”ঙ্গণে দাঁড়িয়ে আছেন। ছবির নিচে আল হারবি লিখেন, তুমি কতো মহৎ, মা…তুমি কখনও আমা’র মৃ’ত

বাবার অবসর ভাতা ভোগ করনি। আমা’র বাবার নামে মসজিদ বানানোর আগ পর্যন্ত গেলো ৩০ বছর ধরে এই টাকা




জমিয়েছ। আমা’র বাবা শান্তিতে থাকুন এবং আল্লাহ তাকে জান্নাতবাসী করুন। আল হারবি ওই টুইট করার কয়েক ঘণ্টার

মধ্যে সেটি ভাইরাল হয়ে যায়। অনেকে ওই ছবি শেয়ারও করেন। একজন টুইটার ব্যবহারকারী লিখেছেন, আল্লাহ তাকে ও




তার স্বামীকে পরকালেও এক করুন। আরেকজন সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারী লিখেছেন, এটি ভালোবাসার সর্বোচ্চ রূপ।আমা’দের সময়

আরো পড়ূন,করো’না মোকাবিলায় এবার উত্তর বারাকপুর পুরসভার আবেদনে সাড়া দিয়ে সোমবার থেকে শুক্রবার পর্যন্ত




সম্পূর্ণ লকডাউন পালন করার সি’দ্ধান্ত নিল ভারত সরকারের প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের অধিনস্ত দুটি কেন্দ্রীয় সরকারি কারখানা

ইছাপুর রাইফেল ও মেটাল ফ্যাক্টরি ক’র্তৃপক্ষ।দুটি কারখানার পক্ষ থেকেই এই মর’্মে বিজ্ঞ’প্ত ি জারি করা হয়েছে ।




করো’না মোকাবিলায় প্রশাসনের কাছে এই মুহুর্তে লকডাউন ছাড়া অন্য কোনও পথ খোলা নেই, একথা স্পষ্ট। এদিকে

উত্তর ২৪ পরগনা জে’লাতে করো’না সংক্রমণ ক্রমশ বাড়ছে। এই পরিস্থিতিতে করো’না সংক্রমণ ঠেকাতে জে’লার




বিভিন্ন পুরসভা গু’লি সোমবার সকাল ৬টা থেকে চলতি মাসের শেষ দিন অর্থাৎ ৩১ জুলাই পর্যন্ত সম্পূর্ণ লকডাউন

কার্যকর করার সি’দ্ধান্ত নিয়েছে। উত্তর বারাকপুর পুরসভা এলাকায় সোমবার সকাল থেকে লকডাউন কার্যকর হবে। উত্তর

বারাকপুর পুরসভা এলাকায় করো’না আ’ক্রা’ন্তের সংখ্যা ইতিমধ্যেই শতাধিক।এদিকে এই পুরসভার ইছাপুর এলাকায়




অবস্থিত কেন্দ্রীয় সরকারের অধীনে থাকা দুটি কারখানা ইছাপুর রাইফেল ফ্যাক্টরি ও মেটাল ফ্যাক্টরি। প্রশাসন সূত্রে খবর,

করো’না সংক্রমণ ছড়িয়েছে এই দুটি কারখানার শ্রমিকদের মধ্যেও। ইছাপুর রাইফেল ও মেটাল ফ্যাক্টরি মিলিয়ে

আ’ক্রা’ন্তের সংখ্যা অন্তত ৩০ জন। এদের মধ্যে ২ জনের মৃ’ত্যুর খবরও পাওয়া গিয়েছে। সেই কারনে এই দুটি

কারখানার শ্রমিকদের মধ্যেও করো’না সংক্রমণ নিয়ে আতঙ্ক ছড়িয়েছে। জানা গিয়েছে, সংক্রমণের দিক দিয়ে বেশি

সংখ্যায় আ’ক্রা’ন্ত হয়েছেন ইছাপুর রাইফেল ফ্যাক্টরীর শ্রমিকরা। তুলনা মূলক ভাবে কম আ’ক্রা’ন্ত মেটাল ফ্যাক্টরির শ্রমিকেরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here