গরু কিংবা খাসির মাংস খেতে যেমন মজা, তেমনি এর ভুঁড়ি খেতেও অসাধারণ। তবে কোরবানির ঈদে গরু বা খাসির ভুঁড়ি নিয়ে পড়তে হয় ঝামেলায়। কারণ ভুঁড়ি পরিষ্কার করা খুবই কঠিন ও ক’ষ্টের কাজ অনেকেই এই কাজটি সহ’জ




করার জন্য চুন ব্যবহার করেন। তবে এতে ভুঁড়ির আসল স্বাদ নষ্ট হয়ে যায়। তাই আজ আপনাদের জন্য রইল চুন ছাড়াই ভুঁড়ি পরিষ্কারের দারুণ কৌশল। সহ’জ দুটি উপায়ে আপনি ঝটপট ভুঁড়ি পরিষ্কার করতে পারবেন। চলুন তবে জেনে নেয়া

যাক পদ্ধতি দুটি স’ম্পর্কে- প্রথম পদ্ধতি একটি হাঁড়িতে পানি ফুটিয়ে নিন। ভুঁড়ি ছোট টুকরা করে কে’টে নিন। প্রতিটি টুকরা আলাদা আলাদা করে ধুয়ে ঘষে পরিষ্কার করুন। পানি ফুটে উঠলে খানিকটা পানি আলাদা একটি পাত্রে নিয়ে ভুঁড়ির




কালো পাশটি পানিতে দিয়ে দিন। ১২ থেকে ১৩ সেকেন্ড রেখে সঙ্গে সঙ্গে তুলে নিন। একটি চামচ দিয়ে ধরে আরেকটি চামচ দিয়ে আঁচড়ে কালো ময়লা তুলে নিন। একটু ঠাণ্ডা হলে চামচ সরিয়ে হাত দিয়ে ধরে আঁচড়ে তুলুন কালো ময়লা।

ভুঁড়ির যে অংশ খাঁজকা’টা থাকে, সেই অংশ আরো কয়েক সেকেন্ড বেশি ভেজাবেন গরম পানিতে। চামচের বদলে স্টিলের গ্লাস দিয়েও ওঠাতে পারেন ময়লা। তবে ১৩ থেকে ১৭ সেকেন্ডের বেশি গরম পানিতে রাখবেন না ভুঁড়ি। এতে




ময়লা আরো আ’ট’কে যেতে পারে। ভুঁড়ি ভালো করে পরিষ্কার করার পর কলের পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। অবশ্যই একটা একটা টুকরা নিয়ে ধোবেন। ভুঁড়ি সিদ্ধ করার জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণে হাঁড়িতে পানি নিন। এমনভাবে পানি নেবেন যেন

ভুঁড়ি ডুবে থাকে পুরোপুরি। ১ থেকে দেড় চা চামচ হলুদ দিয়ে দিন পানিতে। চুলার আঁচ বাড়িয়ে সিদ্ধ করুন ভুঁড়ি। দ্বিতীয় পদ্ধতি প্রথমেই কাঁচি দিয়ে ভুঁড়ি কয়েকটি বড় টুকরা করে নিন। পানি গরম করে সিদ্ধ করে নিন ভুঁড়ি। চুলা




থেকে নামিয়ে গরম থাকা অবস্থায়ই হাতে গ্লাভস পরে চামচ দিয়ে ঘষে উঠিয়ে ফেলুন ময়লা। প্রাথমিকভাবে পরিষ্কার করা হয়ে গেলে একটি বড় প্যানে পরিমাণ মতো পানি গরম করুন। ১ চা চামচ হলুদের গুঁড়া দিয়ে দিন পানিতে। কে’টে রাখা

ভুঁড়ির টুকরা দিয়ে দিন। বলক ওঠা পর্যন্ত অ’পেক্ষা করুন। ১৫ থেকে ২০ মিনিট পর তেল ও ময়লা ভেসে উঠবে। এবার ভুঁড়ি ঝাঁঝরিতে উঠিয়ে পানি ঝরিয়ে ফেলুন। গরম অবস্থায় চামচ দিয়ে চেঁছে উঠিয়ে ফেলুন বাকি ময়লা। বিশেষ করে




চর্বির অংশে জমে থাকা ময়লা পরিষ্কার করতে হবে ভালো করে। পেছনের অংশের পাতলা আবরণ উঠিয়ে ফেলুন। তাহলে আরো দ্রুত পরিষ্কার হবে ভুঁড়ি। গরু কিংবা খাসির মাংস খেতে যেমন মজা, তেমনি এর ভুঁড়ি খেতেও অসাধারণ। তবে

কোরবানির ঈদে গরু বা খাসির ভুঁড়ি নিয়ে পড়তে হয় ঝামেলায়। কারণ ভুঁড়ি পরিষ্কার করা খুবই কঠিন ও ক’ষ্টের কাজ।
অনেকেই এই কাজটি সহ’জ করার জন্য চুন ব্যবহার করেন। তবে এতে ভুঁড়ির আসল স্বাদ নষ্ট হয়ে যায়। তাই আজ




আপনাদের জন্য রইল চুন ছাড়াই ভুঁড়ি পরিষ্কারের দারুণ কৌশল। সহ’জ দুটি উপায়ে আপনি ঝটপট ভুঁড়ি পরিষ্কার করতে পারবেন। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক পদ্ধতি দুটি স’ম্পর্কে- প্রথম পদ্ধতি একটি হাঁড়িতে পানি ফুটিয়ে নিন।

ভুঁড়ি ছোট টুকরা করে কে’টে নিন। প্রতিটি টুকরা আলাদা আলাদা করে ধুয়ে ঘষে পরিষ্কার করুন। পানি ফুটে উঠলে
খানিকটা পানি আলাদা একটি পাত্রে নিয়ে ভুঁড়ির কালো পাশটি পানিতে দিয়ে দিন। ১২ থেকে ১৩ সেকেন্ড রেখে সঙ্গে




সঙ্গে তুলে নিন। একটি চামচ দিয়ে ধরে আরেকটি চামচ দিয়ে আঁচড়ে কালো ময়লা তুলে নিন। একটু ঠাণ্ডা হলে চামচ সরিয়ে হাত দিয়ে ধরে আঁচড়ে তুলুন কালো ময়লা। ভুঁড়ির যে অংশ খাঁজকা’টা থাকে, সেই অংশ আরো কয়েক

সেকেন্ড বেশি ভেজাবেন গরম পানিতে। চামচের বদলে স্টিলের গ্লাস দিয়েও ওঠাতে পারেন ময়লা। তবে ১৩ থেকে ১৭ সেকেন্ডের বেশি গরম পানিতে রাখবেন না ভুঁড়ি। এতে ময়লা আরো আ’ট’কে যেতে পারে। ভুঁড়ি ভালো করে পরিষ্কার




করার পর কলের পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। অবশ্যই একটা একটা টুকরা নিয়ে ধোবেন। ভুঁড়ি সিদ্ধ করার জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণে হাঁড়িতে পানি নিন। এমনভাবে পানি নেবেন যেন ভুঁড়ি ডুবে থাকে পুরোপুরি। ১ থেকে দেড় চা চামচ হলুদ দিয়ে

দিন পানিতে। চুলার আঁচ বাড়িয়ে সিদ্ধ করুন ভুঁড়ি। দ্বিতীয় পদ্ধতি প্রথমেই কাঁচি দিয়ে ভুঁড়ি কয়েকটি বড় টুকরা করে নিন। পানি গরম করে সিদ্ধ করে নিন ভুঁড়ি। চুলা থেকে নামিয়ে গরম থাকা অবস্থায়ই হাতে গ্লাভস পরে চামচ দিয়ে ঘষে

উঠিয়ে ফেলুন ময়লা। প্রাথমিকভাবে পরিষ্কার করা হয়ে গেলে একটি বড় প্যানে পরিমাণ মতো পানি গরম করুন। ১ চা চামচ হলুদের গুঁড়া দিয়ে দিন পানিতে। কে’টে রাখা ভুঁড়ির টুকরা দিয়ে দিন। বলক ওঠা পর্যন্ত অ’পেক্ষা করুন। ১৫

থেকে ২০ মিনিট পর তেল ও ময়লা ভেসে উঠবে। এবার ভুঁড়ি ঝাঁঝরিতে উঠিয়ে পানি ঝরিয়ে ফেলুন। গরম অবস্থায় চামচ দিয়ে চেঁছে উঠিয়ে ফেলুন বাকি ময়লা। বিশেষ করে চর্বির অংশে জমে থাকা ময়লা পরিষ্কার করতে হবে ভালো করে। পেছনের অংশের পাতলা আবরণ উঠিয়ে ফেলুন। তাহলে আরো দ্রুত পরিষ্কার হবে ভুঁড়ি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here