ফসলে যাতে পোকা না ধরে তার জন্য কীটনাশক ব্যবহার করা হয়। কিন্তু সেই কীটনাশক মেশানো ফসল মানুষের শরীরের জন্য ক্ষতিকারক হয়ে ওঠে। ঠিক তেমনই, স্যানিটাইজার ক্ষতিকারক ভাইরাসকে দমন করতে পারে। কিন্তু সেই




দমন মূলক বিষ কী আদৌ শরীরের জন্য যথাযথ? স্যানিটাইজারের মধ্যে থাকে টক্সিক অ্যালকোহল।মার্কিন ফুড এন্ড ড্রাগ

অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ) হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহারে সতর্ক হওয়ার বার্তা দিয়েছে। স্যানিটাইজারের মধ্যে থাকা টক্সিক




অ্যালকোহল শরীর স্বাস্থ্যের সমস্যার পাশাপাশি দৃষ্টি শক্তি কেড়ে নিতে পারে। হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ক্রমবর্ধমান ব্যবসা

চলছে গোটা বিশ্বজুড়ে। এফডিএ সতর্ক করে দিয়েছে যে, বেশ কিছু হ্যান্ড স্যানিটাইজারে ইথানলের (ইথাইল অ্যালকোহল)

উপস্থিতি চিহ্নিত করা হয়েছে। মিথেনলের সঙ্গে পরীক্ষায় যার ফলাফল পজেটিভ। যা ‘উড অ্যালকোহল’ নামেও পরিচিত। এটা মানবদেহের জন্য খুবই ক্ষতিকর।প্রকৃতপক্ষে, এফডিএ একটি পুনর্বিবেচনা তালিকা প্রস্তুত করেছে, যাতে প্রায় ৬৯ টি




হ্যান্ড স্যানিটাইজার পণ্য রয়েছে যা তারা গ্রাহকদের ব্যবহার না mকরার পরামর্শ দিয়েছে। ১৫ জুলাই, তালিকায় আরো দুটি পণ্য যুক্ত করা হয়েছে।২ জুলাই, এফডিএ কমিশনার স্টিফেন এম হান, এমডি এক বিবৃতিতে বলেছিলেন, ‘গ্রাহক এবং

স্বাস্থ্যসেবা সরবরাহকারীদের মিথানলযুক্ত হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করা উচিত নয়। এফডিএ অ্যালকোহল ভিত্তিক নিরাপদ হ্যান্ড স্যানিটাইজারগুলোর সরবরাহ বাড়াতে নির্মাতা, ফার্মাসির স্টেট বোর্ড এবং জনসাধারণের কাছে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ




হয়েছে।’ বহু আন্তর্জাতিক স্বাস্থ্য প্রতিবেদন অনুসারে, আপনি যদি হ্যান্ড স্যানিটাইজারগুলোর বিষাক্ত রাসায়নিকের সংস্পর্শে

আসেন তবে আপনার বমি বমি ভাব, মাথা ব্যথা, অন্ধত্ব, খিঁচুনি অনুভব হতে পারে। এমনকি কোমাতেও চলে যেতে




পারেন আপনি। মিথানল সস্তা, সম্ভবত সেই কারণেই কিছু অনভিজ্ঞ রসায়নবিদ এই বিপজ্জনক রাসায়নিক হ্যান্ড

স্যানিটাইজার তৈরি করতে ব্যবহার করছেন। এটি ব্যবহারের ফলে যে প্রতিক্রিয়া হচ্ছে শরীরে সেদিকে খেয়াল করার সময় এসেছে। সূত্র : ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here