দুইজনই এখন মিন্টো রোডে ডিবি কার্যালয়ে ব’ন্দি। রি’মান্ড চলছে তাদের। চলছে দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদ।করো’না




টেস্টে জালিয়াতির মা’মলায় জোবেদা খাতুন হেলথ কেয়ার প্রতিষ্ঠানের দুই কর্ণধার আরিফুল চৌধুরী ও ডা. সাবরিনাকে

এরমধ্যে বেশ কয়েকবার মুখোমুখি করা হয়েছে। কিন্তু মুখোমুখি করলেই তাদের মধ্যে প্রে’মভাব উথলে ওঠে বলে




জানিয়েছেন ডিবির কর্মক’র্তারা। ত’দন্তকারীরা বলছেন, দুজনকে যখন আলাদা করা হয়। পুরো অনিয়ম, জালিয়াতিসহ

সব অ’পকর্মের মূল হোতা বা পরিকল্পনার বিষয়টি একে অন্যের উপর দোষ চাপাতে চান আরিফ ও ডা. সাবরিনা। অথচ




তাদের যখন মুখোমুখি সামনা সামনি করে তথ্য জানতে চাওয়া হয়, তখন আগের মতো দোষারোপে ভাবটি আর থাকে না।

তাদের দেখে বোঝায় যায় না, কিছুদিন আগেই তাদের গভীর স’ম্পর্কে ছেদ পড়েছে। ডিবির অ’তিরিক্ত কমিশনার আব্দুল




বাতেন জানান, তারা দুজনে মিলে অর্থের প্রলো’ভন, মিষ্টি কথা দিয়েই অধিদফতর বা মন্ত্রণালয়ের কিছু কর্মক’র্তাদের

হাত করেছে। বিশেষ করে, ডা. সাবরিনা তার ফেসভ্যালু, চিকিৎসক পরিচিতি দিয়ে জেকেজির আরিফুলকে কাজ পাইয়ে




দিয়েছে। সুতরাং, যার যার দায়িত্ব যেমন ছিল সেভাবেই তাদের বি’রুদ্ধে অ’ভিযোগপত্র দেয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here