গতকাল রোববার দিল্লিতে ভারতের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি ম্যাচে জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ধীরেসুস্থেই এগোচ্ছিলেন মুশফিকুর রহিম। ম্যাচের একপর্যায়ে ভারতের স্পিনার চাহালের বল গিয়ে লাগে মুশফিকের প্যাডে। এ সময় ভারত এলবিডব্লিউর আবেদন করলে তা সঙ্গে সঙ্গেই নাকচ করে দেন আম্পায়ার। এ সময় রিভিউ নেওয়ার সুযোগ থাকলেও তা নেননি অধিনায়ক রোহিত শর্মা। পরে দেখা যায়, সেটি এলবিডব্লিউ ছিল।

এরপরই মুশফিকের দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে দুর্দান্ত জয় পায় বাংলাদেশ।পরে ম্যাচ প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে মুশফিকের এলবিডব্লিউর রিভিউ না নেওয়ায় হতাশা প্রকাশ করেন রোহিত শর্মা। তিনি বলেন, ‘রিভিউ নেওয়ার ক্ষেত্রে আম’রা ভুল করেছি। কিন্তু এসব ভুল থেকেই আমাদের শিখতে হবে। প্রথম বলটা মুশফিকুর ব্যাকফুটে খেলেছিলেন। আম’রা ভেবেছিলাম, বল লেগস্টাম্পের বাইরে যাচ্ছে। পরের বলটা ফ্রন্টফুটে খেলে পায়ে লাগান তিনি। কিন্তু আম’রা ভুলেই গিয়েছিলাম

যে, মুশফিকুরের উচ্চতা কম।’ ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের এক প্রতিবেদনে এ খবর জানা যায়।মুশফিকুর রহিমের ব্যাটে ভর করেই দিল্লিতে সাত উইকে’টের দারুণ জয় নিয়ে ইতিহাস গড়ে লাল-সবুজের দল। মুশফিক করেন ৪৩ বলে অ’পরাজিত ৬০ রান। ভারতের বিপক্ষে তাদেরই মাটিতে এই জয়কে অনেক বড় কিছু বলে মনে করেন দেশের অন্যতম সেরা এই ব্যাটসম্যান।ম্যাচ শেষে মুশফিক বলেন, ‘এত দর্শকের সামনে খেলা আমাদের জন্য খুব একটা

আলাদা কিছু নয়। বরং আম’রা অনেক বেশি উপভোগ করেছি। অবশ্য ভারতের বিপক্ষে এই জয় আমাদের জন্য অনেক বড় কিছু।’তিনি আরো বলেন, ‘ভারতীয় স্পিনারদের বিপক্ষে খেলা খুব একটা সহ’জ ছিল না। ভাগ্য ভালো ১৯তম ওভারটি কাজে লাগাতে পেরেছি। সৌম্য ও নাঈম ভালো ব্যাট করেছে। তাই কাজটা সহ’জ হয়েছে। একজন ক্রিকেটার হিসেবে সামনের দিকে আরো উন্নতি করার চেষ্টা থাকবে আমা’র।’ব্যাটিং ও বোলিং দুই বিভাগের দারুণ দৃঢ়তায় টি-

টোয়েন্টিতে প্রথমবারের মতো ভারতকে সাত উইকে’টে হারিয়ে ইতিহাস গড়ল বাংলাদেশ।এর আগে এই সংস্করণে গত আটবারের দেখায় ভারতের বিপক্ষে কখনো জিততে পারেনি বাংলাদেশ। অবশেষে সেই আক্ষেপ ঘুচল। এই জয়ের সুবাদে তিন ম্যাচ সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেছে বাংলাদেশ।অবশ্য ভারতের দেওয়া ১৪৯ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ধাক্কা খেয়েছিল বাংলাদেশ। ইনিংসের প্রথম ওভারেই হারায় ওপেনার লিটন দাসকে। তবে দ্বিতীয় উইকে’টে

মোহাম্ম’দ নাঈম ও সৌম্য সরকারের ব্যাটে ঘুরে দাঁড়ায় বাংলাদেশ। দুই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান মিলে গড়েন ৪৬ রানের জুটি।ইনিংসের অষ্টম ওভারে নাঈম-সৌম্যের ছন্দ থামান চাহাল। শেখর ধাওয়ানের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান নাঈম। ফেরার আগে ২৬ বলে ২৮ রান করেন অ’ভিষিক্ত নাঈম।নাঈমের পর মুশফিকের সঙ্গে জুটি বাঁধেন সৌম্য। দুজন মিলে বাংলাদেশকে

এগিয়ে নেন। তবে স্লো উইকে’টে রানের গতি বাড়াতে হিমশিম খেতে হয়েছে সফরকারীদের। রানের গতি বাড়াতে থাকা সৌম্য ফিরেছেন ৩৯ রানে। শেষের দিকে মুশফিক-মাহমুদউল্লাহর ব্যাটে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় বাংলাদেশ। ৪৩ বলে ৬০ রানের অ’পরাজিত ইনিংস খেলেন মুশফিক। ১৫ রান করেন মাহমুদউল্লাহ।এর আগে নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে ভারতকে ১৪৮ রানে থামিয়ে দেয় বাংলাদেশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here