মাছে-ভাতে বাঙালির খাবার পাতে মাছ ছাড়া যেন চলেই না।কাঁটা বেছে মাছ খাওয়া এক শ্রেণির কাছে ঝ’ঞ্ঝা’টের হলেও ভোজনরসিক বাঙালি তাকে দি’ব্য সামলে নিয়েছে। সাধারণত মাছ খেতে অ’ভ্যস্ত যারা, ভাল করে মাছ বেছে খাওয়ার কৌ’শলও তারা র’প্ত করে ফেলেন প্রথম থেকেই। তবু বে’কায়দায় গলায় মাছের কাঁ’টা বিঁ’ধে যাওয়া খুব বি’রল ঘ’টনা নয়।

বরং তা’ড়াহুড়োয় প্রায়ই এমন সমস্যার স’ম্মু’খীন হন অনেকে।এমন বিপদ ঘটলে গলাকে কাঁটার হাত থেকে বাঁচতে সাধারণত ঘরোয়া কিছু উপায় অবলম্বন করি আমরা। সেই কায়দায় হয় কাঁটা নেমে যায়, নয়তো গলে যায়। তবে ঘরোয়া এ সব উপায়েও কাঁটা থেকে মুক্তি না পেলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।
সাধারণত খুব জ’টিলভাবে গলায় কাঁটা না আটকে থাকলে ঘরোয়া উপায়েই সমস্যা দূর হয়। জেনে নিন কয়েকটি ঘরোয়া উপায়-

ভাতের দলা: শুকনো ভাত চটকে দলা পাকিয়ে গিলে নিন দ্রুত। তার পর পানি খান।এক বারে না হলে কয়েক বার এই উপায় অবলম্বন করুন। ভাত ও পানির যৌ’থতায় কাঁটা নেমে যায় বেশির ভাগ সময়।

মা’র্শমেলো: একটি মা’র্শমেলো অল্প একটু চিবিয়ে গিলে নিন। পানি খাবেন না। চিনির আঠালো শরীরে কাঁ’টা আটকে নেমে যাবে।

কলা: পাকা কলা অল্প চিবিয়ে গিলে নিলেও কাঁটা নেমে যায়।কলার হড়হড়ে ভাব কাঁটাকে নামিয়ে দেয় সহজে।

লেবু-লবণ: কাঁটা গলিয়ে দেওয়ার জন্য এই পদ্ধতি বেশ কার্যকর। এক টুকরো লেবুতে লবণ মিশিয়ে চুষে নিন। লেবুর অ’ম্লতা ও লবণের ক্ষা’র ভাব মিলিতভাবে এই কাঁটাতে পাতলা করে গলিয়ে দেবে।

অলিভ অয়েল: গলায় কাঁ’টা বিঁ’ধলে দেরি না করে অ’ল্প অ’লিভ অয়েল খেয়ে নিন। অলিভ অয়েল অন্য তেলের তুলনায় বেশি পিচ্ছিল। তাই গলা থেকে পিছলে নেমে যাবে কাঁটা।ঠাণ্ডা পানীয় ও লেবু: কোনো ঠাণ্ডা পানীয়ের সঙ্গে লেবু মিশিয়ে অল্প অল্প করে চুমুক দিন। ঠাণ্ডা পানীয়ের সোডা আর লেবুর অম্ল একসঙ্গে মিলে এক সময় কাঁটা গলিয়ে দেবে।

ভিনিগার: ভিনিগারে মিশিয়ে নিন পানি। এবার এই মিশ্রণ অল্প অল্প করে খেতে শুরু করলেই এক সময় নেমে যাবে কাঁটা। ভিনিগারের অ’ম্ল’তা ও কাঁ’টা নরম করে দেওয়ার ক্ষমতাই এর জন্য দায়ী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here